টেক্সি ড্রাইভার মুসলিম হওয়ায় হিন্দু লোকের বুকিং বাতিলে আমার প্রতিক্রিয়া

টেক্সি ড্রাইভার মুসলিম হওয়ায় হিন্দু লোকের বুকিং বাতিলে আমার প্রতিক্রিয়া


কোন এক সনাতন ধর্মালম্বী ট্যাক্সি ঠিক করেও তাতে করে গন্তব্যে যাননি যখন বুঝতে পারলেন ওই ট্যাক্সির ড্রাইভার মুসলিম! তিনি এটি টুইটার হ্যান্ডেলে লিখে জানিয়েছেন। আর একে নিয়েই টানাহেচড়া শুরু করেছে সংবাদমাধ্যম। বিষয়টি আমার কাছে গুরুত্বহীন মনে হয়েছে। কিন্তু অনেকেই এর ওপর ক্ষোভ ও ঘৃণা প্রকাশ করেছেন, গালি দিয়েছেন, কেউ আবার কাজটিকে সমর্থন করেছেন ইত্যাদি। এসব খবর গণমাধ্যমে এসে পড়াটা বিরক্তিকর। সংবাদকর্মীরা এমন একটি মূল্যহীন বিষয়টি এড়িয়ে যেতে পারতেন।
Abhishek Mishra's Tweet
Abhishek Mishra's Tweet

আমার ছোটবেলা থেকেই সনাতন ধর্মালম্বীদের সাথে পরিচয়। প্রতিবেশি, খেলার সাথী, পড়ার সাথী, শিক্ষক, প্রতিনিধি ইত্যাদি ভূমিকায় তাঁদেরকে পেয়েছি। কখনোই নেতিবাচক কিছু ঘটেনি যতদূর মনে পড়ে। এই ভিন্ন ধর্মের মানুষদের সাথে ওঠা বসার সুবাদে আমরা একে অপরের বাড়িতে খাবারও খেয়েছি। হ্যাঁ, একসাথে থাকলে বিবাদে জড়িয়ে পড়াটা অস্বাভাবিক নয়। আবার মিটেও গেছে। দেখা হলেই স্ব-ধর্মের মানুষদের মত তাঁদের সাথে হাতে হাত মেলাই, বুকে বুক মেলাই, ঠাট্টা করি ইত্যাদি। তাঁরাও আমাদের প্রতি বেশ আন্তরিক।

আমাদের গ্রামে যে লোকটিকে সব থেকে বেশি ডাকা হয় তিনি সনাতন ধর্মালম্বী। একজন গ্রাম্য ডাক্তার। খবর পেলেই ছুটে যায় রোগীর বাড়িতে। শুধু ঔষধের দামই রাখেন। সবাই তাকে 'ঠাকুর' বলে সম্বোধন করেন। ওনার পাড়ায় সকল ধর্মীয় কাজের নেতৃত্ব তিনিই দেন। জানিনা তাঁদের ধর্মে তাকে কী বলা হয়। অনেক ভাল একজন মানুষ তিনি।

বললে অনেকের কথাই বলতে হয় কিন্তু কিভাবে সম্ভব? আমি কোন সনাতন ধর্মালম্বীকেই দেখিনি যিনি অন্য ধর্মের বা অন্য ধর্মের মানুষদের হেয় করেছেন। খারাপ কিংবা অস্বাভাবিক মানুষের উপস্থিতি সব জায়গায়ই আছে। জানিনা আমি নিজে কতটুকু ভালো বা কতোটুকু স্বাভাবিক, কিন্তু ধর্ম দিয়ে মানুষকে আলাদা করিনা; এটি উচিৎও না।

অভিষেক মিশ্রার মতো মানুষগুলো আবার মানুষহোক।


- মু. মিজানুর রহমান মিজান

Previous Post Next Post